1. admin@rajshahitribune24.com : admin :
  2. rajshahitribune192@gmail.com : editor man : editor man
ফসলের রোগের সমাধানে কৃষকের পাশে অ্যাপ - Rajshahi Tribune24 | রাজশাহী ট্রিবিউন২৪
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৮:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

ফসলের রোগের সমাধানে কৃষকের পাশে অ্যাপ

  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১৯ আগস্ট, ২০২২
  • ৫২৭ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, তানোর : খাদ্য নিরাপত্তার জন্য ফসলের নিরাপত্তা আবশ্যক। আর ফসলের নিরাপত্তায় বালাইনাশকের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। তবে মাঠ পর্যায়ে বালাইনাশকের মান নিয়ে প্রায়শই প্রশ্ন উঠে। এই সমস্যাকে উত্তোরণের নতুন এক পন্থা উদ্ভাবন করেছে রাজশাহীর তানোর উপজেলার দুইজন কর্মকর্তা। তৈরি করেছেন বালাইনাশক সহায়িকা নামক একটি মোবাইল অ্যাপ।
গল্পের শুরুটা বেশ কিছুদিন আগে। মাঠ পরিদর্শনকালে তানোর উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল্লাহ আহম্মদ দেখেন বালাইনাশক দোকানগুলোতে জানা-অজানা পণ্যের ভীড়ে ভেজাল চিহ্নিত করা এক দূরহ কাজ। কথা বলেন সহকার্মীদের সাথে। অফিসে কর্মরত উপসহকারী কর্মকর্তা আলী রেজা খানের প্রযুক্তির প্রতি আগ্রহের কারণে তাকে বালাইনাশকের ডাটাবেজ নিয়ে কোন মোবাইল অ্যাপ বানানো যায় কিনা সে চেষ্টা করতে বলেন। তারপর শুরু হয় সৃষ্টির কর্মযজ্ঞ। তথ্য প্রযুক্তির প্রতি অনুরাগী আলী রেজা সিদ্ধান্ত নেন তথ্যপ্রযুক্তির পাখায় ভর করে কৃষকদের জন্য কিছু করতে। গুগোল ও ইউটিউব সহায়তায় এবং উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শে কঠোর পরিশ্রমে তৈরি করেন ‘বালাইনাশক সহায়িকা’ নামে অনুমোদিত বালাইনাশকের একটি পূর্নাঙ্গ অফলাইন ডাটাবেজ যা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল অ্যাপ। এটি সেবা গ্রহীতা ও সেবা প্রদানকারী এবং বালাইনাশক ব্যবসায়ী সকলের জন্যই সহায়ক। পাশাপাশি এই অ্যাপ কৃষকদের ফসলের নানা সমস্যা ও সমাধানের তথ্য ভান্ডার।
জানা যায়, অনুমোদকারী সরকারি প্রতিষ্ঠান কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কর্তৃক অনুমোদিত চার শতাধিক কোম্পানির ছয় হাজারের অধিক বালাইনাশক পণ্য বাজারে রয়েছে। বিপুল সংখ্যক বালাইনাশকের ভিড়ে ভেজাল বালাইনাশক চিহ্নিতকরণ বেশ কষ্টসাধ্য। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত বালাইনাশক পরিদর্শক (কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার) এবং ইউনিয়ন পর্যায়ে কৃষককে সরাসরি পরামর্শ প্রদানকারী উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের ভেজাল বালাইনাশক চিহ্নিতকরণ এবং পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষেত্রে এ অনুমোদিত বালাইনাশকের ডাটাবেজের সহজ প্রাপ্যতা আবশ্যক। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্যি হলো এতোদিন এমন কোন সহজপ্রাপ্য ডাটাবেজ ছিলোনা। এই সমস্যার সমাধানে অনুমোদিত বালাইনাশকের একটি পূর্নাঙ্গ ডাটাবেজ যা মোবাইল অ্যাপ আকারে পাওয়া যাবে আলী রেজার উদ্ভাবিত প্রচেষ্টাই ‘বালাইনাশক সহায়িকা’য়।
এটি একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন যার মাধ্যমে ১. যেকোন মূল উপাদান সমৃদ্ধ বালাইনাশক কোন কোন প্রতিষ্ঠান কোন বাণিজ্যিক নামে বাজারজাত করছে তা জানা যবে, ২. নির্দিষ্ট বালাইনাশকের ফসল ভিত্তিক অনুমোদিত প্রয়োগ মাত্রা জানা যাবে, ৩. অনুমোদিত বালাইনাশকের এপি নাম্বার (এগ্রিকালচারাল পেস্টিসাইড নাম্বার যা প্রতিটি পণ্যের ক্ষেত্রে ইউনিক) যাচাই করা যাবে। ফলে ভুয়া এপি নাম্বার সম্বলিত নকল বালাইনাশক সনাক্ত করা সহজ হবে, ৪. এই অ্যাপটিতে রয়েছে বাতিলকৃত বালাইনাশকের তালিকা, ৫. এছাড়া রয়েছে নিরাপদ ফসল উৎপাদনের জন্য অনুমোদিত জৈব বালাইনাশকের তালিকা, ৬. রয়েছে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বিদ্যমান উপকরণকে কাজে লাগিয়ে জৈব বালাইনাশক তৈরির কৌশলসমূহ, ৭. বালাইনাশক প্রয়োগে কৃষক কর্তৃক যে সকল সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিৎ সে সম্পর্কিত নির্দেশনা, ৮. সর্বোপরি, অ্যাপটি মাঠ পর্যায়ে বালাইনাশকের মান নিয়ন্ত্রনে দেশব্যাপী কৃষি বিভাগে কর্মরত পাঁচশতর অধিক কর্মকর্তাবৃন্দ (বালাইনাশক পরিদর্শক) ও ১৪ হাজারে অধিক উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাবৃন্দের সময়, খরচ এবং ভ্রমণ সাশ্রয়ের মাধ্যমে কর্মকান্ডকে বেগবান করবে এবং বালাইনাশকের নিরাপদ ব্যবহারে কৃষকের দক্ষতা উন্নয়নে সহায়ক হবে। এছাড়া কৃষকের সঙ্গে কৃষি কর্মকর্তাদের যোগাযোগ, তথ্য দেওয়া নেওয়া যাবে এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে।
এই অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড চালিত যেকোন ডিভাইসে সাপোর্ট করবে। বিশেষ করে আমাদের অতি পরিচিত অ্যান্ড্রয়েড চালিত মোবাইল ফোন, ট্যাবলেট, মিনিপিসি, ফ্যাবলেট, অ্যান্ড্রয়েড টিভি ও অন্যান্য অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস দিয়ে এই অ্যাপটি ব্যবহার করা যাবে।
বালাইনাশক সহায়িকা নামক এ অ্যাপটিতে রয়েছে ৬টি তথ্যভান্ডার। ব্যবহারকারীদের জন্য এই ৬টি ফোরাম হলো-মূল উপাদান, বাণিজ্যিক নাম, এপি নম্বর, বাতিলকৃত বালাইনাশক, জৈব বালাইনাশক, জৈব বালাইনাশক তৈরি।
মোহনপুর উপজেলার মৌগাছি ইউনিয়নের বেড়াবাড়ি গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে আলী রেজা। তিনি জানান, ছোটবেলা থেকেই প্রযুক্তির প্রতি তার অধির আগ্রহ ছিল। তবে উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা পদে চাকরি পাওয়ার পর থেকে মোবাইলের বিভিন্ন অ্যাপ ব্যবহার করতেন। তবে সেদিন স্যারের সেই সমস্যা ও আলোচনার মাধ্যমেই অ্যাপ তৈরির সিদ্ধান্ত নিই। এরপর থেকে শুরু হয় নিয়মিত অনলাইনের তথ্য গবেষণা। অবশেষে তৈরি করে ফেলি কৃষি সম্পর্কিত অ্যাপ ‘বালাইনাশক সহায়িকা’। এ অ্যাপ তৈরিতে তাকে সবচেয়ে বেশি সহায়তা করেছেন তানোর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সাইফুল্লাহ আহম্মেদ। মূলত তার অনুপ্রেরণায় এ অ্যাপটি তৈরি করতে পেরেছেন বলে তিনি দাবী করেন।
আলী রেজা আরও জানান, বালাইনাশক সহায়িকা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ছাড়াও ইতিমধ্যে স্মার্ট কৃষি ও নেক্সাস স্ক্যানার কিউআর কোড মানকি নামের আরও দুটি অ্যাপ তৈরি করেছেন। আ্যাপগুলোর কার্যক্রমও চলমান রয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সাইফুল্লাহ আহম্মদ বলেন, ‘বালাইনাশক সহায়িকা’ অনুমোদিত বালাইনাশকের একটি পূর্নাঙ্গ ডাটাবেজ যা মোবাইল অ্যাপ আকারে পাওয়া যাবে। বাইলাইনাশক সংক্রান্ত সেবা সহজীকরনের লক্ষ্যে উদ্ভাবিত এ অ্যাপের ফলে কৃষি প্রযুক্তি সংক্রান্ত জ্ঞান ব্যবস্থাপনা এবং কৃষি তথ্য ও পরামর্শ সেবাকে গতিশীল করবে। এক কথায় কৃষি ও কৃষকদের ফসলের মাঠকেই তুলে আনা হয়েছে ‘বালাইনাশক সহায়িকা’য়। দেশের কৃষি ও কৃষক উপকৃত হলেই এই উদ্ভাবন সার্থক হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © 2022 রাজশাহী ট্রিবিউন ২৪
Theme Customized By Shakil IT Park
error: Content is protected !!